Best Insurance Companies In Bangladesh

Find all Best Insurance Companies In Bangladesh

Filter by Location


On December 17, 1986, Delta Life Insurance Company embarked on its journey, marking the beginning of a remarkable progression. The ...


MetLife Bangladesh

Dhaka, Bangladesh

MetLife Bangladesh stands as the leading life insurance company in the nation, catering to a vast customer base exceeding one ...


Guardian Life Insurance Limited commenced its business operations on January 1st, 2014. Since then, it has earned a commendable reputation ...


Green Delta Insurance Company Limited (GDIC) is a prominent player in the private non-life insurance sector in Bangladesh. The company ...


In September 26, 2000, a group of passionate local entrepreneurs came together to establish Popular Life Insurance Co. Ltd. From ...


SLIC, a prominent life insurance company in Bangladesh, has been serving its clients since 1990. At SLIC, we value our ...


At Meghna Life Insurance, our guiding principle is 'Trust is our Motto.' Since 1996, we have been dedicated to offering ...


Jiban Bima Corporation

Dhaka, Bangladesh

In the vibrant nation of Bangladesh, there exists a unique entity known as the Jiban Bima Corporation (JBC). This remarkable ...


At Padma Life Insurance Company Ltd, our core focus is centered around offering a comprehensive range of life-based insurance schemes. ...


Pragati Insurance Ltd.

Dhaka, Bangladesh

Pragati Insurance Limited (PIL) stands as a prominent non-life insurance company in Bangladesh's private sector. Its establishment dates back to ...


ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি হলো একটি আর্থিক প্রতিষ্ঠান যা ব্যক্তি এবং ব্যবসার জন্য বিভিন্ন ধরনের বীমা সেবা প্রদান করে, যা তাদের ঝুঁকি থেকে আর্থিক সুরক্ষা প্রদান করে। গ্রাহকরা নিয়মিত প্রিমিয়াম প্রদান করে, এবং বিনিময়ে কোম্পানি নির্দিষ্ট ঘটনা যেমন দুর্ঘটনা বা ক্ষতি ঘটলে আর্থিক ক্ষতিপূরণ প্রদান করে।

এটি একটি চুক্তির মাধ্যমে পরিচালিত হয়, যেখানে গ্রাহকরা নির্দিষ্ট প্রিমিয়াম পরিশোধ করে এবং কোম্পানি ক্ষতির ক্ষেত্রে আর্থিক সুরক্ষা নিশ্চিত করে।

ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি যেভাবে কাজ করে থাকে:

ইন্স্যুরেন্স কোম্পানিগুলো সাধারণত নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করে কাজ করেঃ

প্রিমিয়াম সংগ্রহঃ

গ্রাহকরা নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ (প্রিমিয়াম) ইন্স্যুরেন্স কোম্পানিকে প্রদান করেন। এই প্রিমিয়াম পরিশোধ করা হয় নির্দিষ্ট সময়ের জন্য, যা মাসিক, ত্রৈমাসিক, বা বার্ষিক হতে পারে।

ঝুঁকি মূল্যায়নঃ

Insurance কোম্পানি সম্ভাব্য ঝুঁকি এবং ক্ষতির সম্ভাবনা মূল্যায়ন করে। এটি করতে গিয়ে তারা বিভিন্ন তথ্য বিশ্লেষণ করে, যেমন গ্রাহকের বয়স, স্বাস্থ্য, ব্যবসার ধরন, সম্পদের অবস্থা ইত্যাদি।

পলিসি ইস্যু করাঃ

ঝুঁকি মূল্যায়নের পর ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি গ্রাহকের সাথে একটি চুক্তি করে, যাকে বীমা পলিসি বলা হয়। এই পলিসিতে প্রিমিয়াম, কভারেজ, এবং অন্যান্য শর্তাবলী উল্লেখ থাকে।

ক্লেইম ব্যবস্থাপনাঃ

যদি গ্রাহক কোনও দুর্ঘটনা বা ক্ষতির সম্মুখীন হন, তাহলে তিনি Insurance কোম্পানিতে ক্লেইম জমা দেন। ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি তার পলিসি অনুযায়ী ক্লেইমটি যাচাই করে এবং বৈধ হলে ক্ষতিপূরণ প্রদান করে।

নিরীক্ষা এবং পুনর্মূল্যায়নঃ

ইন্স্যুরেন্স কোম্পানিগুলো নিয়মিত তাদের পলিসি এবং প্রিমিয়াম পুনর্মূল্যায়ন করে, যাতে তারা বর্তমান ঝুঁকি এবং বাজার পরিস্থিতির সাথে সামঞ্জস্য রাখতে পারে।

ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি যে ধরনের সেবা দেয়:

ইন্স্যুরেন্স কোম্পানিগুলো বিভিন্ন ধরনের বীমা সেবা প্রদান করে থাকে, যেমনঃ 

১। জীবন বীমাঃ 

মৃত্যুর পর পরিবারকে আর্থিক সুরক্ষা প্রদান করে, যা তাদের জীবিকা নির্বাহে সহায়ক হয়।

২। স্বাস্থ্য বীমাঃ 

চিকিৎসা খরচে সহায়তা করে, যা অসুস্থতা বা দুর্ঘটনার ক্ষেত্রে বড় ধরনের আর্থিক বোঝা থেকে রক্ষা করে।

৩। মোটর বীমাঃ 

যানবাহন দুর্ঘটনায় ক্ষয়ক্ষতির জন্য ক্ষতিপূরণ প্রদান করে, যা যানবাহনের মালিকদের আর্থিক নিরাপত্তা প্রদান করে।

৪। ভ্রমণ বীমাঃ 

ভ্রমণের সময় অপ্রত্যাশিত ঘটনায় সহায়তা করে, যেমন ব্যাগ হারানো, ফ্লাইট বাতিল, বা চিকিৎসা জরুরি অবস্থায়।

৫। অগ্নিকাণ্ড বীমাঃ

অগ্নিকাণ্ডে সম্পত্তির ক্ষয়ক্ষতির জন্য ক্ষতিপূরণ প্রদান করে, যা বাড়ি বা ব্যবসার মালিকদের বড় ধরনের আর্থিক ক্ষতি থেকে রক্ষা করে।

৬। ব্যবসায়িক বীমাঃ 

ব্যবসায়িক ঝুঁকি থেকে সুরক্ষা প্রদান করে, যেমন মালামাল চুরি, কর্মচারীর আঘাত, বা প্রাকৃতিক দুর্যোগের ফলে ব্যবসার ক্ষতি।

এছাড়াও, Insurance কোম্পানিগুলি আরও অনেক ধরণের বীমা পলিসি প্রদান করে, যা বিভিন্ন প্রয়োজন ও পরিস্থিতির জন্য আর্থিক সুরক্ষা নিশ্চিত করে।

বীমা শিল্পের সাধারণ পরিসংখ্যানঃ

  • ২০২৩ সালের হিসাব অনুযায়ী, মোট বীমা প্রিমিয়াম ৳ ২০,০০০ কোটি টাকারও বেশি।
  • বার্ষিক বৃদ্ধির হার ৮-১০%।
  • জীবন বীমা ৭০% এবং সাধারণ বীমা ৩০%।
  • জনসংখ্যার ৫% এরও কম বীমা সুরক্ষা পায়, এবং গ্রামীণ এলাকায় বীমা প্রবেশযোগ্যতা অনেক কম।

তথ্য সূত্রঃ বাংলাদেশ বীমা অ্যাসোসিয়েশন (BAIA), বাংলাদেশ বিমা নিয়ন্ত্রক ও উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (IDRA), বিভিন্ন বীমা কোম্পানির ওয়েবসাইট ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের রিপোর্ট।

ভালো Insurance কোম্পানি চেনার উপায়:

ভালো Insurance Company চেনার কিছু গুরুত্বপূর্ণ উপায় রয়েছে, যা আপনাকে সঠিক এবং নির্ভরযোগ্য কোম্পানি বেছে নিতে সাহায্য করবে। নিচে এই উপায়গুলো উল্লেখ করা হলঃ

রিভিউ এবং রেটিংঃ

অনলাইনে বিভিন্ন গ্রাহকের রিভিউ এবং রেটিং দেখুন। ভালো ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির সাধারণত ভালো রিভিউ এবং উচ্চ রেটিং থাকে।

প্রতিষ্ঠার ইতিহাসঃ

কোম্পানির প্রতিষ্ঠার তারিখ এবং ইতিহাস যাচাই করুন। যে কোম্পানি দীর্ঘ সময় ধরে ব্যবসা করছে, তারা সাধারণত বেশি বিশ্বাসযোগ্য এবং স্থিতিশীল।

সেবার মানঃ

কোম্পানির গ্রাহক সেবা কেমন তা যাচাই করুন। ভালো গ্রাহক সেবা প্রদানকারী কোম্পানি আপনার সমস্যার দ্রুত সমাধান দিতে সক্ষম হবে।

ক্লেইম সেটেলমেন্ট রেকর্ডঃ

কোম্পানির ক্লেইম সেটেলমেন্টের সময় এবং হার দেখুন। যারা দ্রুত এবং সফলভাবে ক্লেইম সেটেল করে তারা সাধারণত ভালো সেবা প্রদান করে।

লাইসেন্স ও অনুমোদনঃ

নিশ্চিত করুন যে কোম্পানিটি যথাযথ কর্তৃপক্ষ দ্বারা লাইসেন্সপ্রাপ্ত এবং অনুমোদিত। বাংলাদেশে ইন্স্যুরেন্স ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড রেগুলেটরি অথরিটি (IDRA) দ্বারা অনুমোদিত কোম্পানিগুলোর মধ্যে থেকে নির্বাচন করুন।

প্রিমিয়াম ও কভারেজঃ

বিভিন্ন ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির প্রিমিয়াম এবং কভারেজ তুলনা করুন। ভালো কোম্পানি সাধারণত সঠিক মূল্য এবং উপযুক্ত কভারেজ প্রদান করে।

পরামর্শঃ 

পরিচিতদের থেকে পরামর্শ নিন, যারা ইতিমধ্যে কোনও ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির সাথে অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন। তাদের অভিজ্ঞতা আপনাকে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করবে।

ব্র্যান্ড ইমেজঃ

কোম্পানির ব্র্যান্ড ইমেজ বা সুনাম কেমন তা যাচাই করুন। সুপরিচিত এবং বিশ্বস্ত ব্র্যান্ড সাধারণত ভালো সেবা প্রদান করে।

এই উপায়গুলো অনুসরণ করে আপনি সহজেই একটি ভালো ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি চেনার সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন, যা আপনাকে সঠিকভাবে আর্থিক সুরক্ষা প্রদান করতে সক্ষম হবে।